প্রশ্ন ও উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরষ্কার, বিস্তারিত জানতে এখানে দেখুন!
233 জন দেখেছেন
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে করেছেন
সম্পাদিত
আমার নিয়মিত মাসিক হতো ৩/৪ তারিখ থেকে ৯/১০ পর্যন্ত। আমি হাসব্যান্ড এর সাথে ১০ অক্টোবর রাতে সহবাস করি এর পর আরো কয়েক দিন সহবাস করছি (সাথে ৩ নভেম্বর ও ৮ নভেম্বর ও আছে)। এখন নভেম্বর মাস এর ১৬ তারিখ হয়ে গেছে আমার মাসিক হচ্ছে না।
ঘন ঘন প্রস্রাব হয়, মাসিক বন্ধ হয়ে গেছে, খেতে ভালো লাগে না, দুর্বলতা অনুভব হয়।
আমার মনে হচ্ছে আমি প্রেগনেন্ট।আমি কি প্রেগনেন্ট? প্রেগনেন্সি টেস্ট করার মতো কোনো সুযোগ পাচ্ছি না।যদি আমি প্রেগন্যান্ট হয় তাহলে কোন ওষুধ খেলে (এমন কোনো ওষুধ আছে কি যেটা খেলে ১মাস ১৫ দিন বা ২ মাস এর  বাচ্চা নষ্ট করা যাবে ) এই বাচ্চা নষ্ট করা যাবে কোনো প্রকার শারীরিক ক্ষতি ছাড়া (কম ক্ষতি হলে ও চলবে)। আর ওষুধটা কিভাবে ব্যবহার করতে হবে সেটা একটু দয়াকরে বুজিয়ে বলবেন। অনেক উপকার হবে।
করেছেন
এটাতো আপনার অবৈধ না তাহলে নষ্ট করার কি দরকার?একটা সন্তান গর্ভে আশা কম কথা আর আপনি এটাকে নষ্ট করে ফেলতে চাইছেন? মনমানসিকতার পরিবর্তন করুন।
Sopno Neel Akhi করেছেন (38 পয়েন্ট)
আপু এই কাজ করার আগে সিউর হন আপনি প্রেগন্যান্ট কিনা, প্রেগনেন্সি টেস্ট করার কীট পাওয়া যায় বাজারে সেগুলো কিনে এনে চেক করে দেখুন আপনি প্রেগনেন্ট কিনা। এমনও তো হতে পারে আপনি প্রেগনেন্ট না অথচ আপনি প্রেগনেন্সি নষ্ট করার জন্য ঔষধ খেয়েছেন তাতে হিতে বিপরীত হবে।
করেছেন
বাচ্চা নষ্ট করা এটি খুবই নীকৃষ্ট মনের কাজ। এটি করা উচিত না।

2 উত্তর

+2 টি ভোট
করেছেন

আপনি বাজার থেকে MM Kit কিনে এনে সেটা খেয়ে দুই মাস বয়স পর্যন্ত বাচ্চা নষ্ট করতে পারবেন। ব্যবহার বিধি প্যাকেটের গায়ে লেখা আছে। তবে একটা কথা, ঔষধ সেবন করলে অনেক রক্তক্ষরণ হবে। আর রক্ত বন্ধ না হলে বিপদ হতে পারে। এজন্য অবশ্যই একজন স্থানীয় ডাঃ এর তত্ত্বাবধানে থেকে এই ঔষধ সেবন করতে হবে। একা একা সেবন করা মোটেই ঠিক নয়।

আরও কিছু জানার থাকলে অবশ্যই জিজ্ঞাসা করবেন

+1 টি ভোট
করেছেন

এক মাস পরে গর্ভাবস্থা নষ্ট করার একমাত্র উপলভ্য পদ্ধতি হয় চিকিৎসাগত বা সার্জিকাল গর্ভপাত। শব্দ শুনেই বোঝা যায়, গর্ভধারণের অগ্রগতিতে বাধা দেওয়ার জন্য ওষুধ ব্যবহারের সাথে চিকিৎসাগত গর্ভপাত জড়িত। গর্ভাবস্থার অগ্রগতি বন্ধ করার জন্য ওষুধ ব্যবহার করা সর্বোত্তম উপায় হিসাবে বিবেচিত হয়, কারণ এটি প্রকৃতিতে আক্রমণাত্মক নয়। গর্ভাবস্থা রোধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া শক্ত হতে পারে। এক মাস কেটে যাওয়ার পরেও, গর্ভাবস্থা বন্ধ করার কয়েকটি উপায় রয়েছে। এর মধ্যে জরুরী গর্ভনিরোধক বড়ি ব্যবহার করাও অন্তর্ভুক্ত যা সহবাস করার পরে ৪৮ থেকে ৭২ ঘন্টার মধ্যে গ্রহণ করা উচিত। ‘মর্নিং আফটার’ পিল হিসাবেও পরিচিত, এটি নিয়মিত জন্ম নিয়ন্ত্রক পদ্ধতিগুলির চেয়ে কম কার্যকর। তবে এই পদ্ধতিটি কার্যকর প্রমাণিত হতে পারে না যদি আপনি সহবাসের ১ মাস পরে কীভাবে গর্ভাবস্থা এড়ানো যায় তা চিন্তা করছেন।

সার্জিকাল গর্ভপাত না করে কীভাবে গর্ভাবস্থা বন্ধ করা যায়?

কোনও ধরণের গর্ভপাত না করে গর্ভাবস্থা বন্ধ করার কোনও উপায় নেই। তবে কিছু পদ্ধতি রয়েছে যা অস্ত্রোপচারের হস্তক্ষেপের প্রয়োজন ছাড়াই গর্ভাবস্থা বন্ধ করতে কার্যকর প্রমাণিত হতে পারে। এইগুলো হলঃ

  • মেডিকেল গর্ভপাত
  • ভেষজ গর্ভপাত
  • রাসায়নিক পদ্ধতি
  • প্রোস্টাগ্ল্যান্ডিন পদ্ধতি
  • স্যালাইন জল পদ্ধতি
করেছেন
আমি ২ মাসের বাচ্চা নষ্ট করতে চাই।আমাকে এখন কি করতে হবে এবং কোন ধরনে মেডিসিন গ্রহন করতে হবে।প্লিজ কেউ জানলে বলবেন

সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ

1 উত্তর

89 টি প্রশ্ন

79 টি উত্তর

76 টি মন্তব্য

422 জন সদস্য


ইপ্রশ্ন ডটকম হল মাতৃভাষায় সহজে সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য অনলাইন মাধ্যম। যেখানে আমাদের দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্ন ধরনের কৌতুহল মূলক অজানা প্রশ্ন জিজ্ঞাসা ও উত্তর খুজে পাওয়ার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে, নির্বিশেষে সহজে সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলায় দৃড় অঙ্গীকার বদ্ধ।

  1. Sifat Kazi Sifat Kazi

    17 পয়েন্ট

  2. Md lajim Md lajim

    14 পয়েন্ট

  3. Fazlul Haque Fazlul Haque

    14 পয়েন্ট

  4. Jamil Ahmed Jamil Ahmed

    12 পয়েন্ট

1 জন অনলাইনে আছে
0 জন সদস্য 1 জন অতিথি
আজকের ভিজিটরঃ 3779
গতকালকেঃ 593
মোট ভিজিটরঃ 5912

বিঃ দ্রঃ ইপ্রশ্ন তে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন, উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের।

...